December 12, 2019

কুলাউড়ায় কবরস্থানের জমিতে মার্কেট নির্মাণ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান

বিশেষ প্রতিনিধি : কুলাউড়ায় কবরস্থানের জমি দখল করে দোকান মার্কেট নির্মাণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে উপজেলার বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আহবাব শাহজাহানের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষে হায়াত শহীদ সিপন নামের এক ব্যক্তি ১৪ নভেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেন। যার ডকেট নং-১৭৬০। এর অনুলিপি জেলা প্রশাসক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বরাবরে পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বরমচাল ইউনিয়নের জিন্নানগর মৌজার খতিয়ান নং- এস.এ ১১৯৭, ডি.পি ৪১৭, এস.এ দাগ নং-১৪৭৬ মূলে কবরস্থানের ১৫ শতাংশ জমি দখল করে একটি টিনসেড দোকান মার্কেট নির্মাণ করেছেন বরমচাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল আহবাব শাহজাহান। কবরস্থানের জমিতে মার্কেট নির্মাণের সময় এলাকাবাসী বিরোধিতা করলে তিনি তাদের হুমকি প্রদান করেন। এলাকায় তিনি খুবই প্রভাবশালী হিসেবে পরিচিত। অনেক সময় মানুষ তাঁর অত্যাচার ও ক্ষমতার দাপটের কাছে তটস্ত হয়ে থাকতে হয়। ১৯৫৬ সালের রেকর্ডপত্রে ১৪৭৬ দাগের জমিটি কবরস্থানের এবং ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য ব্যবহারযোগ্য মর্মে উল্লেখ করা হয়েছে। এর আগে বরমচালের একটি মাদ্রাসায় জোরপূর্বক গাছ কাটার কারণে চেয়ারম্যান শাহজাহান মৌলভীবাজার বিজ্ঞ আমলী আদালতে ফৌজদারী মামলায় জামিনে রয়েছেন।

সরেজমিন দেখা যায়, ব্রাহ্মণবাজার-ভাটেরা সড়কের বরমচাল ইউনিয়নের মহলাল এলাকার প্রধান সড়কের পাশে কবরস্থানের ওই জমির ওপর নির্মিত হয়েছে একটি মার্কেট। মার্কেটে ৪/৫টি দোকান রয়েছে। এর পূর্ব পার্শ্বে রয়েছে কবরস্থানের অবশিষ্ট জমি।

এলাকাবাসীর সাথে আলাপ করলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান, ১৯৫৬ সালের রেকর্ডের পূর্বে এই জমির মালিক ছিলেন পৃথিমপাশা জমিদার বাড়ির নবাব আলী ইয়াহর খাঁন। তখনকার মাঠ জরিপের সময় স্থানীয় এলাকাবাসীকে এই জমি কবরস্থানের জন্য দেন নবাব আলী ইয়াহর খাঁন এবং রায়তি মূলে এই জমি দেখভাল করার দায়িত্ব দেন বর্তমান চেয়ারম্যানের পিতা মরহুম আব্দুল গনিকে। কিন্তুু বিগত কয়েক দশক ধরে কৌশলী পন্থায় কবরস্থানের চিহ্ন বিলীন করে জমি দখলে নেন আব্দুল গনি ও তাঁর পুত্র বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান। কয়েক বছর পূর্বে এই জমিতে নিজের ক্ষমতার প্রভাব খাঁটিয়ে মার্কেট নির্মাণ করেন চেয়ারম্যান আব্দুল আহবাব শাহজাহান। কবরস্থানের ওপর মার্কেট নির্মাণ করায় বর্তমান চেয়ারম্যান মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছেন বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুস সালাম ড্রাইভার জানান, আমার ফুফুর কবর ওই জমিতে রয়েছে।

সাবেক চেয়ারম্যান ইছহাক চৌধুরী ইমরান জানান, পূর্ব-পুরুষ থেকেই স্থানীয় এলাকার অনেকের কবর দেয়া হয়েছে এই কবরস্থানে। আমরা ছোটবেলা থেকে দেখেছি জমিটি কবরস্থান হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

বরমচাল ইউনিয়নের বাসিন্দা ও উপজেলা ডেপুটি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. মাসুক মিয়া জানান, জমিটি পৃথিমপাশা জমিদার বাড়ির ছিল। এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য এটি দেয়া হয়েছে। এখনো এখানে কবরের অনেক চিহ্ন রয়েছে। কিন্তুু চেয়ারম্যান জমিটি দখল করে মার্কেট নির্মাণ করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে বরমচাল ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আহবাব শাহজাহান বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, আমি আমার জমিতে মার্কেট নির্মাণ করেছি, কবরস্থানের জমিতে নয়। আর এখানে কোন কবরস্থান নেই। একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে এসব ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। রেকর্ডপত্র যাচাইপূর্বক যদি সরকারি স্বার্থ জড়িত থাকে তবে তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ