November 19, 2019

প্রায় তিন যুগেও মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্তি হয়নি কমলগঞ্জের শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়

প্রনীথ রঞ্জন দেবনাথ:  সমতার ভিত্তিতে দেশব্যাপী বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির তালিকা প্রকাশ করা হলেও মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়টি মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্তি হয়নি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জনবল কাঠামো, স্থাপনা, কাংখিত শিক্ষার্থীসহ সব শর্ত পূরণের পরও দীর্ঘ ৩৫ বছরেও এই প্রতিষ্ঠানটি মাধ্যমিক স্তরে এমপিও বঞ্চিত হওয়ায় শিক্ষক-কর্মচারীরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। সম্প্রতি ঘোষিত এমপিওভুক্তি প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রকাশের পর কমলগঞ্জ শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা অভিযোগ করছেন, নীতিমালা মানা হলে এই প্রতিষ্ঠানটি স্থান পেত তালিকায়। ফের তদন্তের মাধ্যমে এমপিওভুক্তি প্রতিষ্ঠানের তালিকায় যুক্ত করে নতুন তালিকা প্রকাশের দাবি জানান। এ বিদ্যালয় দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে নিম্নমাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্তি হয়ে পরিচালিত হয়ে আসছে। নীতিমালা অনুযায়ী এ প্রতিষ্ঠান সব শর্ত পূরণ করেই তারা আবেদন করেছে। বর্তমানে এই বিদ্যালয়ের নিম্নমাধ্যমিক স্তরে ৫ জন শিক্ষক ও ২ জন কর্মচারী এমপিওভুক্তি আছে। খন্ডকালীন আরো ৪ জন শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন। বিদ্যালয়ে মোট ৪২৫ জন শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত রয়েছেন।
শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ফজলুর রহমান বলেন, নীতিমালা অনুযায়ী আমার বিদ্যালয় সব শর্ত পূরণ করে। এ বিদ্যালয়টি ১৯৭৩ সালে ৫০ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৮৪ সালে নিম্নমাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্তি হয়েছে। ২০০০ সালে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ে একাডেমিক স্বীকৃতিও পেয়েছে। একাডেমিক স্বীকৃতির মেয়াদ, শিক্ষার্থী সংখ্যা, পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ও ফলাফল সবকিছু বিবেচনায় এমপিওভুক্তির শতভাগ শর্ত পূরণ করে এই বিদ্যালয়। তারপরও আমাদের এই বিদ্যালয়টি এমপিওভুক্ত হয়নি, এটা এখনো বিশ্বাসই করতে পারছি না।
শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. আব্দুস সালাম বলেন, ‘সকল চেষ্টা চালিয়েও দীর্ঘ ৩৫ বছরেও বিদ্যালয়টি মাধ্যমিক স্তরে এমপিও না হওয়ায় বঞ্চিত শিক্ষকবৃন্দের মনে সঙ্গত কারণেই প্রশ্ন জাগে-আর কতবার এসএসসি পরীক্ষা দিলে মাধ্যমিক পর্যায়ে এমপিওভুক্তি হবে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিষ্ঠানটি পাবলিক পরীক্ষায় ভালো ফলাফলের পাশাপাশি সকল জাতীয় কর্মসূচিসহ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিতে দক্ষতার স্বাক্ষর রেখে চলেছে ধারাবাহিকভাবে। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষা মন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি, স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে জোরালো দাবি জানিয়ে বিদ্যালয়টি দ্রুততার ভিত্তিতে এমপিওভুক্তির আবেদন জানান।
এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামছুন্নাহার পারভীন বলেন, এই মাধ্যমিক বিদ্যালয়ই এমপিওভুক্তির উপযোগী। দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সঙ্গে স্কুলটি পরিচালিত হয়ে আসছে।

সর্বশেষ সংবাদ