November 19, 2019

কুলাউড়ায় অটোরিকশা-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৫

মাহফুজ শাকিল :  কুলাউড়ায় যাত্রীবাহি সিএনজি অটোরিকশা ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে সোনালী পাল (৮) নামে এক শিশু ও শামীমা আক্তার নার্গিস  (৪০) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন এবং অপর ৫ যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে কুলাউড়া-বড়লেখা আঞ্চলিক সড়কের উত্তর কুলাউড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মুখে এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনাটি ঘটে। দূর্ঘটনায় আহতরা হলেন, নিহত সোনালীর বাবা কমলগঞ্জের হরিপুর গ্রামের নিরঞ্জন পালের ছেলে নিতাই পাল (৪০) ও তাঁর স্ত্রী ঝুমা পাল (৩৫), সিএনজি অটোরিকশা চালক জুড়ী উপজেলার খালেরমুখ গ্রামের বাসিন্দা দুলাল মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া (২৫), জুড়ীর পশ্চিম বাছিরপুর গ্রামের হবিব মিয়ার ছেলে আলী হোসেন (২০) এবং কুলাউড়া পৌর শহরের জয়পাশা গ্রামের রেনু মালাকার (৪০)। নিহত সোনালী এ দুর্ঘটনায় আহত নিতাই পালের মেয়ে এবং সে কমলগঞ্জের হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির ছাত্রী ও অপর নিহত নারী শামীমা আক্তার নার্গিস কুলাউড়া পৌরশহরের দক্ষিণবাজার এলাকার বাসিন্দা খায়রুল ইসলামের স্ত্রী।
১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিএনজি অটোরিকশাযোগে দুর্ঘটনাকবলিত যাত্রীরা জুড়ী থেকে কুলাউড়া ফিরছিলেন। পথিমধ্যে উত্তর কুলাউড়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছালে বিপরীতমুখী একটি ট্রাকের (মৌলভীবাজার ড-১১-০৪৪৮) সাথে সিএনজি অটোরিকশা (মৌলভীবাজার-থ ১২-১০৮৯) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় যাত্রী বোঝাই অটোরিকশাটি উল্টে দুমড়ে মুচড়ে যায়। খবর পেয়ে কুলাউড়া ফায়ার সার্ভিস ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কতর্ব্যরত চিকিৎসক শিশু সোনালী পালকে মৃত ঘোষণা করেন। সোনালীর বাবা-মাসহ বাকি ৫ জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এদিকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে নার্গিস আক্তার শামীমা মারা যান।
নিহত সোনালীর চাচাতো ভাই অনুপ পাল বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে জুড়ীর বাছিরপুর এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে সন্তানসহ নিজ বাড়ি কমলগঞ্জের হরিপুরে ফেরার উদ্দেশে রওয়ানা দেন নিতাই পাল। মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় আমার চাচাতো বোন সোনালির মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছি।
কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়ারদৌস হাসান বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজি অটোরিকশা ও ট্রাকটি থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তবে ট্রাকের চালককে আটক করা যায়নি। নিহত সোনালী ও নার্গিস আক্তারের লাশ থানায় রাখা হয়েছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে তাদের স্বজনদের কাছে লাশ প্রেরণ করা হবে। এ ঘটনায় মামলায় প্রক্রিয়াধীন।

সর্বশেষ সংবাদ