December 12, 2019

কুলাউড়ায় ইউডিসি উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ প্রসঙ্গে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

গত ১০ অক্টোবর ২০১৯ইং তারিখের জাতীয় দৈনিক পত্রিকা প্রথম আলো-এর ৭নং পৃষ্ঠায় ‘কুলাউড়ায় ইউডিসি উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ’ এবং বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলোতে আমাকে জড়িয়ে যে কাল্পনিক মনগড়া নিউজ প্রকাশিত হয়েছে আমি তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
আমি বিগত ২০১০ইং সন থেকে কাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা হিসেবে কর্মরত আছি। অত্যন্ত সৎ ও নিষ্ঠার সঙ্গে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করে আসছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে তৃণমূল পর্যায়ে সহজে সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবং ইউনিয়নবাসীকে সেবা দিয়ে আসছি। এর ফলশ্রুতিতে মাননীয় জেলা প্রশাসক কর্তৃক পুরস্ক্রত ও হয়েছি। কিন্তু আমাকে জড়িয়ে যে সকল অপপ্রচার হচ্ছে তা নিয়ে আমি হতাশ ও বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েছি। সকলের জ্ঞাতার্থে বলতে চাই, ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধন সরবরাহের জন্য ও বয়স বাড়ানো কমানোর ব্যাপারে যে অভিযোগ উঠেছে তা অসত্য। জন্ম নিবন্ধনের বয়স সংশোধনের জন্য নির্দিষ্ট আইন ও প্রক্রিয়া রয়েছে। এসব প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বৈধ ভাবে যেকেউ সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারে। সুষ্ঠু প্রক্রিয়া ছাড়া বয়স সংশোধনের অন্য কোন মাধ্যম নাই। এসকল প্রক্রিয়ায় কেবলমাত্র ফরম ফিলাপ করা ছাড়া অন্য কোন কাজ আমার নেই। ফরম ফিলাপ করার পর তাতে ইউপি সচিব ও চেয়ারম্যান মহোদয় স্বাক্ষর করা ছাড়া আইনী প্রক্রিয়ায় যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। বয়স বাড়ানো বা কমানোর ব্যাপারে আমার ব্যক্তিগত কোন বৈধ পন্থা বা উপায় নেই। বিধায় এ ব্যাপারে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের বিষয়টি সত্য নয়। ইউপি সচিব ও চেয়ারম্যান সাহেবের স্বাক্ষর ছাড়া কখনো কোন জন্ম সনদ সরবরাহ করা হয়নি। চেয়ারম্যান ও সচিবের স্বাক্ষর ব্যতিত কোন জন্ম সনদ দেয়ার এখতিয়ারও আমার নেই। আমার সহকর্মী নারী উদ্যোক্তাকে যৌন হয়রানীর যে অভিযোগ উঠেছে তা রীতিমতো হাস্যকর ও কাল্পনিক। তাহার সহিত আমার কোনরূপ অবৈধ সম্পৃক্ততা ছিল না বা থাকার কোন কারণও নাই। সাম্প্রদায়িক উসকানী দেয়ার জন্য আমাকে দূর্বল করার হীন মানষে ও আমার মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য তাহার ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে আমার সহকর্মী মহিলা উদ্যোক্তা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে। আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে আসা অভিযোগগুলো সম্পূর্ণরূপে মিথ্যা, কাল্পনিক, উদ্দেশ্য প্রনোদিত, ভূয়া ও ষড়যন্ত্রমূলক। আমি সকল অভিযোগের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সুকুমার মল্লিক
উদ্যোক্তা (পূরুষ)
কাদিপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার
কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

সর্বশেষ সংবাদ