October 22, 2019

কুলাউড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৪টি মহিষের মৃত্যু

কুলাউড়া প্রতিনিধি :  মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের উত্তর নর্তন গ্রামে ঝুঁকিপূর্ণ পিডিবির ঝুলন্ত লাইন কৃষি জমিতে ছিটকে পড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ৪টি মহিষ মারা যায় খবর পাওয়া গেছে। ঘটনার চব্বিশ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও বিদ্যুৎ বিভাগের কাউকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হতে দেখা যায়নি। স্থানীয়ভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলেও দুর্ঘটনাকবলিত মহিষগুলো বিদ্যুৎ লাইনের সাথে এখনো কৃষি জমিতে লেগে রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক রবিবার বিকেলে কুলাউড়া বিদ্যুৎ অফিসে ক্ষতিপূরণ চেয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
জানা যায়, শনিবার বিকেলে ওই এলাকায় কৃষি জমিতে বাতাসের কারণে ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎলাইন কৃষি জমিতে ছিটকে পড়ে। স্থানীয় বাগাজুড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষক আখাই মিয়ার গৃহপালিত ৩টি মহিষ ও ভাটৎগ্রামের দরিদ্র কৃষক আক্তার মিয়ার ১ টি মহিষ কৃষি জমিতে বিচরণের সময় জমিতে পড়ে থাকা বিদ্যুতের লাইনের সাথে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। এসময় রাখাল আবিদ মিয়া মহিষকে অনেক চেষ্টা করেও বিদ্যুৎ লাইন থেকে সরাতে পারেনি। তিনিও এসময় বিদ্যুতায়িত হন। পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় রাখাল আবিদ প্রাণে বাঁচলেও মহিষগুলোকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। ঘটনার পর এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে বিদ্যুৎ অফিসে খবর দেয়ার পরও এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে যাননি। এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল জানান, দীর্ঘদিন থেকে ঝুঁকিপূর্ণ এসব বিদ্যুৎ লাইন মেরামত না করায় ঝড়ো-বাতাসে কৃষি জমিতে লাইন ছিটকে পড়ে যায়। বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজনকে খবর দেয়ার পরও তাদের উদাসীনতায় কারণে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটছে। যার কারণে এই দুই দরিদ্র কৃষকের শেষ সম্বল মহিষগুলোর প্রাণ গেলো। এতে ক্ষতি হয়েছে প্রায় পাঁচ লক্ষ টাকা।
ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকপুত্র ডালিম জানান, অনেক কষ্ট করে আমাদের গৃহপালিত মহিষগুলো মৃত্যুতে আমাদের অনেক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। আমার পিতা আখাই মিয়া বিদ্যুৎ অফিসে লিখিত অভিযোগ করেছেন। আমরা ক্ষতিপূরণ চাই।
কুলাউড়া পিডিবির বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী শামছ আরেফিন রবিবার বিকেলে বলেন, মহিষের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সাথে আলাপ হয়েছে। তাদেরকে বলেছি লিখিত আবেদন করার জন্য। ক্ষতিপূরণ পাওয়ার সরকারি নিয়মে আছে। তবে ঘটনার তদন্ত করে রিপোর্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানোর পর ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে ক্ষতিগ্রস্থদের আর্থিক সহযোগিতা করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ