September 19, 2019

বড়লেখায় টিলা ধ্বসে নিহত ১, আহত ২

আব্দুর রব : বড়লেখায় পাহাড় টিলা কাটা যেন থামছেই না। নির্বিচারে টিলা কেটে মাটি বিক্রি চললেও নির্বাক পরিবেশ অধিদফতর, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন। অথচ পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন এমপি’র নিজ এলাকা হচ্ছে বড়লেখা। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে টিলা কাটতে গিয়ে টিলা ধ্বসে মাটি চাপায় এক শ্রমিকের মৃত্যু ঘটেছে। আহত হয়েছে অপর দুই মাটি শ্রমিক। এদের একজনের অবস্থা আশংকাজনক।

টিলা ধ্বসে মাটি চাপায় নিহত মাটি শ্রমিকের নাম হারুনুর রশীদ (২৫)। সে উপজেলার বালিশকোনা গ্রামের ফয়জুর রহমানের ছেলে। আহত হয়েছে জামিল আহমদ ও আজাদ মিয়া নামে দুই ট্রাক্টর শ্রমিক। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার চন্ডিনগর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। রাতেই পুলিশ নিহত হারুনুর রশীদের লাশ উদ্ধার করে শুক্রবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে টিলার মালিক আব্দুস সবুর ও ট্রাক্টর চালক ময়নুল ইসলাম পলাতক রয়েছে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার চন্ডিনগর গ্রামে আব্দুস সবুরের বিশাল উচু টিলায় মাটি কাটা চলছিল। আব্দুস সবুর দীর্ঘদিন ধরে পরিবেশ আইন অমান্য করে টিলা কেটে মাটি বিক্রি করছিলেন। ঘটনার রাতে মাটি কেটে ট্রাক্টরে তোলতে গিয়ে ট্রাক্টর শ্রমিক হারুনুর রশীদের ওপর টিলা ধ্বসে পড়লে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। আহতবস্থায় ট্রাক্টর শ্রমিক জামিল ও আজাদকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ রাত দুইটায় ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, টিলার পাদদেশে আব্দুস সবুরের আধাপাকা ঘর মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে। ঘরের পাশেই চলছে টিলা কাটা। দীর্ঘদিন ধরে সেখানে টিলা কাটা চলছে। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক। আব্দুস সবুরের মা মায়া বেগম ও স্ত্রী ছালেমা বেগম জানান, রাতে টিলা ধ্বসে একজন মারা গেছেন বলে শোনেছেন। মাটি বিক্রির অভিযোগ তারা অস্বীকার করে তারা বলেন, ট্রাক্টর চালক ময়নুল ইসলাম তাদের না বলে প্রায়ই তাদের টিলা থেকে মাটি নিয়ে যায়। এর বেশি তারা কিছুই জানেন।

থানার এসআই শরীফ উদ্দিন জানান, ঘটনার সময় হারুনুর রশীদ টিলায় মাটি কেটে ট্রাক্টরে ভরছিলেন। এসময় টিলা ধ্বসে মাটির নিচে চাপা পড়ে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে রাতেই সেখানে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে শুক্রবার সকালে লাশ ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সর্বশেষ সংবাদ