December 15, 2018

কুলাউড়ায় সাংবাদিকদের সাথে নৌকার প্রার্থী এম এম শাহীনের মতবিনিময়

বিশেষ প্রতিনিধি : মৌলভীবাজার-২ কুলাউড়া আসনে নৌকার প্রার্থী, বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন কুলাউড়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। বুধবার রাতে তাঁর কুলাউড়াস্থ নিজ বাসভবনে মতবিনিময়কালে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নের সরকার, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আবারো উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট প্রার্থনা করেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বুকে লালন করে বর্তমান সরকারকে আবারো বিজয়ী করে উন্নয়নের পথে একজন সহযোদ্ধা হয়ে সমাজ বিনির্মাণে দেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রেখে শান্তি ও সমৃদ্ধির একটি বাংলাদেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে সকলের সহযোগিতায় আমৃত্যু মানুষের কল্যাণের জন্য নিজেকে নিয়োজিত রাখতে সাবেক এ সাংসদ। তিনি বলেন, আপনারা জানেন, রাজনীতিতে আমার কবর রচনা হয়েছে। সেই কঠিন প্রতিকূলতা থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে টেনে তুলে নৌকার প্রার্থী দেয়ার বিবেচনা করেছেন। সেজন্যে আমি দেশনেত্রীর কাছে চিরকৃতজ্ঞ। আমি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় আমার ভাই, আমার দাদার বাসায় মুক্তিযুদ্ধের সমরাস্ত্র জমা হয়েছিলো। মুক্তিযুদ্ধ শেষে আমার কুলাউড়ার বাসায় জমাকৃত সেই অস্ত্র থানায় জমা দেয়া হয়। আমি সেই পরিবারের সদস্য হয়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে যুক্ত হয়ে আগামীর পথে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাবো। ‘ধানের শীষের বিরুদ্ধে আমি দুইবার নির্বাচন করেছি। ধানের শীষের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে আমি ফুটবল মার্কা নিয়ে বিপুল ভোটে এমপি হয়েছি। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তিনি বলেন- ‘আমি কৃতজ্ঞতার সহিত স্মরণ করছি বিশ্বের মানবতাবাদী নেত্রী, এই বাংলাদেশের উন্নয়নের মহাসড়কে যিনি পরিচালিত করছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যিনি ১০ বছর দেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন সেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।’
সাবেক এমপি তাঁর বক্তৃতায় আরো বলেন, বিগত ১০ বছর কুলাউড়াবাসী কাঙ্খিত উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে ছিল। ২০০৮ সালের নির্বাচনে কুলাউড়ায় এক ভোটে দুই এমপির কথা বলে জনগণকে ধোকা দিয়ে ভোট চাওয়া হয়। এবারও ১ ভোটে তিন এমপি’র কথা বলা হবে। তাদের এই গভীর ষড়যন্ত্রকে রুখতে এক্ষেত্রে সাংবাদিকদের মাধ্যমে তিনি সকল সচেতন ভোটারদের সজাগ থাকার আহবান জানান। সবশেষে তিনি কুলাউড়ায় কর্মরত সকল সাংবাদিকের সহযোগিতা কামনা করেন।

মতবিনিময় কালে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক সুশীল সেনগুপ্ত.  এম, শাকিল রশীদ চৌধুরী, আব্দুল বাছিত বাচ্চু, এম মছব্বির আলী, স্বপন কুমার দেব রতন, খালেদ পারভেজ বখস, বিশ্বজিৎ দাস, আজিজুল ইসলাম, মোক্তাদির হোসেন, চৌধুরী আবু সাঈদ ফুয়াদ, ময়নুল হক পবন, মানজুরুল হক, মিন্টু দেশোয়ারা, কল্যাণ প্রসুন চম্পু, আব্দুল করিম বাচ্চু, আলাউদ্দিন কবির, নাজমুল ইসলাম, আব্দুল কুদ্দুছ, জসিম চৌধুরী, ছয়ফুল ইসলাম, এ কে এম জাবের, তারেক হাসান, সাইদুল হাসান শিপন, এস আলম সুমন, শরীফ আহমদ, মাহফুজ শাকিল, শাকির আহমদ, সৈয়দ আশফাক তানভীর, এম এ কাইয়ুম, ফুয়াদ চৌধুরী, নাজমুল বারি সোহেল, সামসুল ইসলাম, এসডি রুবেল ও রাহেলা সিদ্দিকা প্রমুখ।

সর্বশেষ সংবাদ